19 C
Dhaka,BD
January 29, 2023
Uttorbongo
জাতীয় বাংলাদেশ

এসএসসি পাসে ৪০ হাজার টাকা বেতনের চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণা

এসএসসি-এইচএসসি পাসে ৪০ হাজার টাকা বেতনের চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন। ভুয়া কনফারমেশন লেটারও দেওয়া হতো। এরপর ল্যাপটপ ও মোটরসাইকেল দেওয়ার লোভ দেখিয়ে তাদের থেকে দফায় দফায় মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিতেন প্রতারকরা।

বুধবার (১০ আগস্ট) দুপুরে মালিবাগ সিআইডি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন সাইবার পুলিশ সেন্টারের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. রেজাউল মাসুদ।

তিনি বলেন, চক্রের মূলহোতাসহ তিন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গ্রেফতাররা হলেন- মো. মজিবুর রহমান (৪২), দুই নারী সহযোগী লাবনী আক্তার (২৩) ও জান্নাতুল ফেরদৌস ময়না (২০)।

এ সময় ১৪টি মোবাইল, ৬০টি বিভিন্ন কোম্পানির সিম কার্ড, চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে পাওয়া ৪০টি জাতীয় পরিচয়পত্র, ১৪৮টি বায়োডাটা ও ৩০টির বেশি ভূঁইফোড় কোম্পানি ও এনজিওর নামে করা নিয়োগপত্র ও স্ট্যাম্প সিল জব্দ করা হয়।

পুলিশ সুপার মো. রেজাউল মাসুদ বলেন, চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে বিপুল পরিমাণ টাকা আত্মসাৎ করে একটি সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র। তারা উত্তরায় নারী ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র নামে একটি অফিস খুলে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা করেছে। বিভিন্ন জেলার শিক্ষিত ও বেকার যুবকদের চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে ও জামানত বাবদ মোটা অঙ্কের টাকা রাখে আবার কখনো প্রশিক্ষণ, ল্যাপটপ কিংবা মোটরসাইকেল দেওয়ার নাম করে অগ্রীম অর্থ হাতিয়ে নিতেন।

এ বিষয়ে সাইবার পুলিশ সেন্টারে (সিপিসি) একটি অভিযোগ আসে। অভিযোগের বিষয়ে প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়, অভিযোগকারী ভিকটিম ছাড়াও সারাদেশে অসংখ্য বেকার চাকরিপ্রার্থীরা এ চক্রের মাধ্যমে প্রতারিত হয়েছেন। পরে সাইবার মনিটরিং টিমের একটি চৌকস দল গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর দক্ষিণখান থানার আশকোনা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি মজিবুর রহমানের বরাত দিয়ে বিশেষ পুলিশ সুপার মো. রেজাউল মাসুদ বলেন, তিনি তার অন্যান্য সহযোগীদের যোগসাজশে গত ৫ বছরে প্রায় ২৫ হাজার সিভি/বায়োডাটা সংগ্রহ করেছেন। এসব বায়োডাটা থেকে তথ্য সংগ্রহ করে বিভিন্ন চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে গত ৩ বছরে প্রায় ১ কোটি ৮৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে সাইবার পুলিশ সেন্টারের বিশেষ পুলিশ সুপার রেজাউল মাসুদ বলেন, চাকরির বিজ্ঞপ্তি দিলেই চাকরিপ্রার্থীরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা না করে আবেদন করেন। এটা ঠিক না। এছাড়া চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা চাইলে বুঝতে হবে চক্রটি প্রতারক। একই ধরনের প্রতারণার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে মূলহোতা মজিবুর রহমানের আগে ২০১৮ সালে একাধিকবার গ্রেফতার হয়। পরে জামিনে বের হয়ে একই অপরাধে জড়িয়ে পড়েন।

Related posts

খালাসের অপেক্ষায় তেলবাহী জাহাজ,দেশে তেল মজুদ ৪০ দিনের

admin

আশুগঞ্জ অভ্যন্তরীণ কনটেইনার নির্মাণে সময়-ব্যয় বাড়লো

Asha Mony

আইজিপি জেনেশুনেই যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Asha Mony