20 C
Dhaka,BD
February 9, 2023
Uttorbongo
দেশজুড়ে পাবনা

পশুহাট জমলেও দাম নিয়ে হতাশ বিক্রেতারা

কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে পাবনায় জমে উঠেছে পশুহাট। পশুর পাশাপাশি প্রতিদিন ভিড় বাড়ছে দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের। তবে তুলনামূলক কম বিক্রি হচ্ছে পশু। খাদ্যের দাম অনুপাতে গরুর দাম না বাড়ায় হতাশ বিক্রেতারা।

বিক্রেতারা বলছেন, দেশী খাবার খাইয়ে এসব পশু মোটাতাজাকরণ হয়েছে। তবে গো-খাদ্যের দাম বেড়ে যাওয়ার গত বছরের চেয়ে এবার তাদের ৩০-৩৫ শতাংশ খরচ বেশি হয়েছে। সে অনুপাতে কোরবানির পশুর দাম কম। ফলে ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে। তবে বেচাকেনা বেশ ভালো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন হাট ইজারাদাররা।

প্রাণিসম্পদ বিভাগ বলছে, পাবনায় এবার এক লাখ ৭৭ হাজার গরু-মহিষ এবং চার লাখের বেশি ছাগল-ভেড়া বিক্রি হতে পারে। এসব পশুর বাজারমূল্য ২ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে।

শনিবার (২ জুলাই) উত্তরাঞ্চলের অন্যতম বৃহত্তম হাট বনগ্রাম পশুহাটে গিয়ে দেখা গেছে ক্রেতা- বিক্রেতাদের ব্যাপক ভিড়। করোনা সংক্রমণের ভয় কাটিয়ে কেনা-বেচায় মত্ত সবাই। দূরের ব্যাপারীদেরও এসব হাটে পশু কিনতে দেখা গেছে। আবার ঢাকায়ও গরু নিতে শুরু করেছেন ব্যাপারীরা।

কয়েকজন খামারির সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কোরবানির পশুর দাম গত বছরের চেয়ে ১৫- ২০ শতাংশ কম। এদিকে গো-খাদ্যের দাম বেড়ে দ্বিগুণ হওয়ায় খামারিদের লাভের মুখ দেখা কঠিন হয়ে গেছে।

বনগ্রাম হাটে বিশাল আকৃতির এক গরু এনেছিলেন সাঁথিয়া উপজেলার শফিকুল ইসলাম লিটন নামের তরুণ উদ্যোক্তা। তিনি জানান, তার গরু শাহী ওয়াল জাতের। অনেক খরচ করে লালন-পালন করেছেন। হাটে ক্রেতার তার গরুর যে দাম বলছে, তাদে খাদ্য কেনার দামই উঠছে না।

হাটের মধ্যে সবচেয়ে বড় গরু আনার দাবিদার পাবনার রসুলপুর গ্রামের সুজন আলী। তিনি বলেন, ‘যেভাবে খরচ ও পরিচর্যা করে পশুটিকে লালন-পালন করেছি সেরকম দাম কেউ বলছে না। ৬ লাখ টাকা দাম চেয়েছি। ৫ লাখ টাকা হলে বিক্রি করে দিবো। কিন্তু দাম উঠছে ৪ লাখ টাকা।’

এদিকে ব্যাপারী ও ফড়িয়ারাও হতাশার কথা শোনালেন। তারা বাড়ি বাড়ি থেকে কিছুদিন আগে গরু কিনে রেখেছিলেন। হাটে বেশি দামে বিক্রির জন্য রাখলেও এখন উল্টো কমে গেছে।

কাশীনাপুর ইউনিয়নের বরাট গ্রামের ব্যাপারী লাল মিয়া বলেন, ‘প্রতি লাখে তাদের ১০-২০ হাজার টাকা লস গুনতে হচ্ছে। ব্যাপারীদের জমি বেচে ক্ষতি পোষাতে হবে।’

কাশীনাথপুরের আরেক ব্যাপারী আলমগীর হোসেন বলেন, ‘প্রতি গরুতে ২০ হাজার টাকা লোকসান গুনতে হচ্ছে।’

পাবনা সদর উপজেলার সুখচর এলাকার আবুল হোসেন ব্যাপারী বলেন, ‘১২ মাস গরুর ব্যবসা করি। কোরবানি উপলক্ষে ২৫টি গরু কিনেছি। কোরবানির হাটে গরুর দাম কম। আমার সাড়ে ৪ লাখ টাকার মতো লোকসান গুনতে হবে।’

বনগ্রাম পশুহাটে গিয়ে দেখা গেছে, ছোট সাইজের গরুর (৬০ কেজি মাংস উপযোগী) দাম ৪৫ থেকে ৫০ হাজার টাকা। মাঝারি সাইজের গরুর (৮০ কেজি মাংস উপযোগী) দাম ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা, ১২০-১৪০ কেজি ওজনের গরু ১ লাখ টাকার নিচে ও বড় সাইজের গরু (২৪০ -২৫০ কেজি মাংস উপযোগী) ১ লাখ ৪৫ কিংবা দেড় লাখ টাকায় কেনাবেচা হচ্ছে।

কয়েকজন খামারি জানান, দেড় লাখ টাকায় যে ষাঁড়টি বিক্রি হচ্ছে সেটাকে দু’বছর ধরে অন্তত এক লাখ টাকার খাবার খাওয়াতে হয়েছে। এছাড়া বাছুর অবস্থায় কিনতেও ২৫-৩০ হাজার টাকা লাগে। এর সঙ্গে চিকিৎসা খরচ আর নিজেদের পরিশ্রম তো রয়েছেই। এসব হিসাব করলে একজন খামারি বা চাষির লাভ থাকে না বললেই চলে। দিনে দিনে খরচ করে এক সঙ্গে টাকাগুলো পাওয়া যায়, এটাই লাভ।

এদিকে দাম কম হওয়ায় অনেক খামারি বা গেরস্থকে হাট থেকে গরু ফিরিয়ে নিতে দেখা গেছে। আর দাম কিছুটা কম হওয়ায় ক্রেতারা বেশ খুশি। আতাইকুলা থানার বামনডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা ইকরামুল মন্ডল জানান, তারা ১ লাখ ৪৭ হাজার টাকায় একটি ষাঁড় কিনেছেন। গত বছরের চেয়ে বেশ কম দামে ষাঁড় কিনতে পেরেছেন।

হাট ইজারাদারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, করোনার কারণে গত দুটি ঈদের হাটে নানা সমস্যা ছিল। এবার স্বাভাবিকভাবে বেচাকেনা চলছে।

বনগ্রাম গ্রামের ইজারাদারদের পক্ষে ক্ষেতুপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনছুর আলম পিন্টু জানান, হাট এবার জমজমাট। এবার ছোট ও মাঝারি সাইজের গরু কেনার দিকে ক্রেতাদের আগ্রহ বেশি। তবে গরুর দাম গতবারের চেয়ে ১৫ -২০ শতাংশ কম।

পাবনা জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডা. কৃষ্ণ মোহন হাওলাদার জাগো নিউজকে বলেন, বাণিজ্যিকভিত্তিতে জেলায় প্রায় ২৪ হাজার খামারি রয়েছেন যারা গাভী ও ষাঁড় পালন করেন। আরও অন্তত ১০-১৫ হাজার ক্ষুদ্র কৃষক নিজ উদ্যোগে গরু মোটাতাজাকরণ করছেন। এছাড়া জেলায় প্রতি বছর প্রায় ১০ হাজার হত দরিদ্র নারী এনজিওর টাকায় গরু পালন করে থাকেন। এবছর প্রায় এক লাখ ৭৭ হাজার গরু-মহিষ কোরবানির হাটে উঠবে। চার লাখের বেশি ছাগল-ভেড়াও বাজারে উঠবে। এর অর্ধেক পাবনায় আর বাকি পশু দেশের বিভিন্ন হাটবাজারে যাবে। গড় হিসেবে এগুলোর দাম ২ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে।

Related posts

করোনা: রাজশাহী মেডিকেলে একজনের মৃত্যু

admin

বিয়ের দাবিতে অনশন, ব্যর্থ হয়ে প্রেমিকের নামে ধর্ষণচেষ্টার মামলা

Asha Mony

গাইবান্ধায় বিএনপি-ছাত্রদলের ২০ নেতাকর্মী কারাগারে

admin